অস্ট্রেলিয়ানদের সঙ্গে লিফটে ওঠা নিষেধ ছিল অশ্বিনদের!

ভারতের সদ্য সমাপ্ত অস্ট্রেলিয়া সিরিজে বর্ণবাদ নিয়ে তুমুল বিতর্ক হয়েছে। একাধিকবার বর্ণবাদী মন্তব্যের অভিযোগে মাঠ থেকে দর্শকদের বের করে দিয়েছে অজি পুলিশ। সফর শেষ হলেও বিতর্ক থামছে না। এবার যেন বোমা ফাটালেন ভারতীয় স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিন। নিজের ইউটিউব চ্যানেলে ফিল্ডিং কোচ শ্রীধরের সঙ্গে কথোপকথনে অশ্বিন জানিয়েছেন, সিডনিতে লিফটের ভিতরে অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটারেরা থাকলে তাদের ঢুকতে দেওয়া হতো না!

অশ্বিন বলেছেন, ‘আমরা সিডনি পৌঁছনো মাত্র কঠোরতম সব নিষেধাজ্ঞা আমাদের উপরে চাপিয়ে দেওয়া হয়। আক্ষরিক অর্থেই যেন আমাদের বন্দি করে ফেলা হয়। খুব অবাক করার মতো একটা অভিজ্ঞতাও হয়েছিল। অস্ট্রেলীয় খেলোয়াড়েরা যখন লিফটের ভিতরে থাকত, আমাদের প্রবেশ করতে দেওয়া হতো না! ঘটনাটা খুব বিস্মিত করার মতো। দুটি দলই তো একই জৈব সুরক্ষা বলয়ে ছিল। সত্যি কথা বলতে, আমাদের সবাইকে খুব অবাক করেছিল এই নিষেধাজ্ঞা।’

অশ্বিন আরও বলেছেন, বিশেষ করে সিডনিতে যে রকম আচরণ তাদের সঙ্গে করা হচ্ছিল, তাতে ভারতীয় ক্রিকেটারদের খুবই খারাপ লেগেছে। প্রসঙ্গত, সিডনিতেই টেস্ট ম্যাচ চলার মাঝে সিরাজ, যশপ্রীত বুমরাহদের উদ্দেশে গ্যালারি থেকে বর্ণবিদ্বেষী মন্তব্য করা হয়। তা নিয়ে আম্পায়ারদের কাছে, ম্যাচ রেফারির কাছে অভিযোগও জানায় ভারতীয় দল। অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ড তদন্ত শুরু করেছে।সিরিজ শেষ হয়ে গিয়েছে, তবু সিডনির ঘটনা নিয়ে কোনও রকম পদক্ষেপের কথা তারা ঘোষণা করেনি।

এর মধ্যেই অশ্বিনের ফাঁস করা তথ্য তদন্তে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে। কোনও দেশেই এভাবে বৈষম্য করা হয় না। অশ্বিন স্পষ্ট বলেছেন, ‘এ রকম কিছু যে ঘটতে পারে, তা আমরা ভাবতেও পারিনি। সত্যিই আমাদের সকলের খুব খারাপ লেগেছিল। আমরা একই জায়গায়, একই বলয়ের মধ্যে আছি; অথচ একই সঙ্গে লিফট ব্যবহার করতে পারব না? সিরিজ ১-১ হতেই আমাদের বলা হয়, হোটেল রুম থেকে বের হওয়া যাবে না। একদম বন্দি! এই ব্যাপারগুলো হজম করাই খুব কঠিন ছিল।’

Check Also

৫ অক্টোবর ঢাবির হল খোলার সুপারিশ প্রভোস্ট কমিটির

করোনা পরিস্থিতির কারণে প্রায় দেড় বছর ধরে বন্ধ থাকা আবাসিক হলগুলো খুলে দেওয়ার সুপারিশ করেছে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *