ছেলে সেজে প্রেম, নারী পাচার চক্রের ৪ সদস্য আটক

মুখেরকথা, চুলের স্টাইল, পোশাক আশাক সবই ছেলেদের মত নাম রেখেছেন রায়হান প্রেম করেছেন মাধ্যমিক স্কুলের ছাত্রী ঋতুর(১৬) সঙ্গে। কথিত প্রেমিক তাকে ফুসলিয়ে বিয়ের প্রলোভনে সহযোগীদের নিয়ে ঋতুকে অপহরন করে নিয়ে তুলে দেয় তারমা মুক্তা বেগমের হাতে। মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ী উপজেলার মাকুহাটি উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্রী ঋতু নিখোঁজের ঘটনায় তার পিতা উপজেলার কাঠাঁদিয়া গ্রামের বিল্লাল মুন্সীথানা পুলিশকে সংবাদ দিলে পুলিশ জেলার সদর থানাধীন জোর পুকুরপাড় পূর্বপাড়া কাজলের বাড়ী থেকে তাকে অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করে।

উদ্ধারকৃত ঋতু জানান, আমার সাথে প্রতারনার আশ্রয় নিয়ে মুক্তা বেগমের মেয়ে স্মৃতি (১৫) ছেলে সেজে প্রেম করে আসছিল। তার মা মুক্তা,বাবা রবিউল তাকে সহযোগীতা করত। ২১ জুলাই বুধবার ঈদের দিন সকাল সাড়ে ১১ টায় আমাকে স্মৃতি নিজেকে রায়হান পরিচয়ে তার মা, বাবা ও সৎ মা কে সঙ্গে নিয়ে অটো রিক্সায় করে গোপনে নিয়ে আসে। পরবর্তীতে আমি বুঝতে পারি আমার প্রেমিক রায়হান আসলে ছেলে নয় মেয়ে। তারা আমাকে ৩ দিন আটকে রেখে নির্যাতন করে খারাপ কাজ করার কথা বলে আমি রাজি না হওয়াতে তারা আমাকে অন্যত্র পাঠিয়ে দিতে প্রস্তুতি নিচ্ছিল।

ঋতুর পিতা বিল্লাল মুন্সী জানান, আমার প্রতিবেশী চাচাত বোন মুক্তা আর তার মেয়ে স্মৃতিকে যোগ সাজসে ছেলে সাজাইয়া আমার মেয়েকে কৌশলে ফাঁদে ফেলে অপহরন করিয়া নিয়া যায়। যৌন শোষন, নিপিড়নের উদ্দেশ্যে অন্যত্র স্থানান্তরের প্রস্তুতির সময় ঋতুকে পুলিশের সহায়তায় উদ্ধার কওে মামলা দায়ের করেছি। মামলার তদন্ত কর্মকতা আল মামুন জানান, স্মুতি, মুক্তা, রবিউল, হিজরা শাকিলা সংঘবদ্ধ নারী ও শিশু পাচারকারী চক্র। তারা কৌশলে উঠতি বয়সি মেয়েদের অপহরন করে অশালীন কাজ করানো সহ বিভিন্ন স্থানে পাচারের সহিত জড়িত মর্মে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে।

Check Also

৫ অক্টোবর ঢাবির হল খোলার সুপারিশ প্রভোস্ট কমিটির

করোনা পরিস্থিতির কারণে প্রায় দেড় বছর ধরে বন্ধ থাকা আবাসিক হলগুলো খুলে দেওয়ার সুপারিশ করেছে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *