লকডাউনে এইচএসসি পরীক্ষা,র্থীদের নিয়ে শিক্ষ,কের চাইনিজ পার্টি!

বরগুনার বেতাগীতে চলমান লকডাউনের মাঝে এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের নিয়ে শিক্ষকের প্রীতিভোজ অনুষ্ঠানের লাইভ দেখে স্থানীয়দের মাঝে আলোচনার ঝড় উঠেছে। বেতাগী গার্লস স্কুল এন্ড কলেজের ইংরেজী বিভাগের প্রভাষক মো: রবেল খান একটি চাইনিজ রেস্টুরেন্ট পুরো ভাড়া ও ব্যানার প্রদর্শন করে এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের সম্মানে এ প্রীতিভোজের আয়োজন করে। যা প্রভাষকের ফেইসবুকের মাধ্যমে লাইভ সম্প্রচার করা হয়। সেখানে দেখা যায় স্বাস্থ্যবিধিও সম্পূর্ণ উপেক্ষিত।

শুক্রবার (৬ আগস্ট) দুপুর সাড়ে ১২টায় বেতাগী পৌরসভার বাসষ্ট্যান্ড এলাকার আকন ফুডস প্লেসে আয়োজিত এ প্রীতি ভোজে অনুষ্ঠানে ২০২১ সালের এইচএসসির প্রায় ৫০ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেন। এ সময় ঐ প্রভাষকের পক্ষ থেকে কাচ্চি বিরিয়ানী পরিবেশন করা হয়। যা উক্ত প্রভাষকের ফেইসবুকের মাধ্যমে সমগ্র অনুষ্ঠান লাইভে সম্প্রচার করে। এরপর থেকেই চলমান লকডাউনের মাঝে এ ধরনের একটি অনুষ্ঠান লাইভ দেখে মানুষের দৃষ্টি কাড়ে ও আলোচনার ঝড় সৃস্টি করে। স্থানীয় একাধিক সচেতন মহলে তৈরি করছে নানা প্রশ্নের, একজন শিক্ষক হয়ে লকডাউনের মাঝে কোন বিচেনায় তিনি এ ধরনের অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এতে তারা হতবাক ও বিস্মিত হয়ে পড়েছে। অনুষ্ঠানের আয়োজক বেতাগী গার্লস স্কুল এন্ড কলেজের ইংরেজী বিভাগের প্রভাষক মো: রবেল খান জানান, আমি নয়,

পরীক্ষার্থীরাই এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। তবে সঠিক না হলেও কর্তৃপক্ষের অনুমতি ও সম্পুর্ণ স্বাস্থ্যবিধি মেনেই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। বেতাগী গার্লস স্কুল এন্ড কলেজের আধ্যক্ষ মো: রফিকুল আমিন বলেন, এটি তার ব্যক্তিগত বিষয় হলেও মানুষের এই চরম সংকটময় মুহুর্তে এ ধরনের অনুষ্ঠানের আয়োজন খুবই দু:খজনক ও দৃষ্টি কটু। অনুষ্ঠানের বিষয় আমি অবহিত নয় কিংবা আমার কাছ থেকে কোন ধরনের পরামর্শও নেয়া হয়নি। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: সুহৃদ সালেহীন বলেন, ঘটনাটি পরে জেনেছি। তাই মোবাইল কোর্ট পরিচালনা সম্ভব হয়নি। একজন শিক্ষক হিসেবে স্বাস্থ্যবিধি লঙ্ঘন করে এ ধরনের অনুষ্ঠানের আয়োজন ঠিক হয়নি। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান ও শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Check Also

অনলাইন থেকে শুক্রাণু কিনে ‘ই-বেবি’র জন্ম দিলেন নারী

সন্তান পেতে চেয়েছিলেন। তবে শুধু এই কারণে বাধ্য হয়ে কোনো সম্পর্কে জড়াতে চাননি ৩৩ বছর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *