পুলিশ সোর্সসহ তিন বন্ধু মিলে কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ

গাজীপুরের কালীগঞ্জে দুই বন্ধুকে নিয়ে স্থানীয় এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে ইয়াছিন (৪০) নামের পুলিশের সোর্সের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) দুপুরে ভূক্তভোগী ওই কিশোরী পুলিশের সোর্সকে প্রধান অভিযুক্ত করে তার দুই বন্ধুসহ ৩ জনের নামে থানায় একটি ধর্ষণ মামলার দায়ের করেছেন। ঘটনার পর অভিযুক্তরা সবাই পলাতক। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে ধর্ষণ ও মামালার বিষয়টি স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে নিশ্চিত করেছেন কালীগঞ্জ থানার ইন্সপেক্টর (অপারেশন) মোজাম্মেল হক।

ধর্ষণ মামলার প্রধান অভিযুক্ত ইয়াছিন কালীগঞ্জ পৌর এলাকার দড়িসোম গ্রামের মৃত চান্দু মিয়ার ছেলে। তার দুই সহযোগী বন্ধুরা একই গ্রামের ফিরোজের ছেলে রাজু (২০) এবং একই এলাকার বালীগাঁও গ্রামের আজু (৪০)। মামলার অভিযোগের বরাত দিয়ে ইন্সপেক্টর মোজাম্মেল হক জানান, বুধবার (০৪ আগস্ট) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ওই কিশোরী কালীগঞ্জ বাসস্ট্যান্ড এলাকায় হালিম খেতে যায়। লকডাউনের কারণে হালিমের দোকান বন্ধ থাকার কারণে ওই কিশোরী স্থানীয় পুরাতন ব্যাংকের মোড়ে চটপটি খেতে রিকশায় উঠে বসে।

এ সময় কিছু দূরে যাওয়ার পরে ইয়াসিন লাফ দিয়ে রিকশায় উঠে এবং তাকে বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখিয়ে কালীগঞ্জ খেয়াঘাট সংলগ্ন সরকারী খাদ্য গুদামের সামনে নিয়ে বসিয়ে রাখে। পরে রাত সাড়ে ১২টার দিকে তারা অভিযুক্ত আজুর পাহাড়ায় ইয়াসিন ও রাজু মিলে জোড় পূর্বক ওই কিশোরীকে সংঘবদ্ধভাবে ধর্ষণ করে। এ সময় ওই কিশোরীর চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে অভিযুক্তরা পালিয়ে যায়।

Check Also

অনলাইন থেকে শুক্রাণু কিনে ‘ই-বেবি’র জন্ম দিলেন নারী

সন্তান পেতে চেয়েছিলেন। তবে শুধু এই কারণে বাধ্য হয়ে কোনো সম্পর্কে জড়াতে চাননি ৩৩ বছর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *