শিশুকন্যাকে হত্যার পর অন্তঃসত্ত্বা মায়ের আত্মহত্যা

কলেজ শিক্ষক স্বামী অন্য নারীর প্রতি আসক্ত- এই অভিমানে একমাত্র সন্তান দেড় বছর বয়সী মেয়ে কথাকে শ্বাসরোধে হত্যার পর আত্মহত্যা করেছেন অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূ পিয়া মণ্ডল (২৩)। শনিবার সন্ধ্যায় যশোরের মনিরামপুর উপজেলার কুলটিয়া গ্রামে মর্মান্তিক এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ রাত ৯টার দিকে মা-মেয়ের মরদেহ উদ্ধার এবং কলেজ শিক্ষক কনার মণ্ডলকে আটক করেছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার কুলটিয়া ইউনিয়নের সুজাতপুর গ্রামের ননি মণ্ডলের ছেলে মশিয়াহাটি ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক কনার মণ্ডলের সঙ্গে পাঁচ বছর আগে বিয়ে হয় অভয়নগর উপজেলার দত্তগাতী গ্রামের ভগিরত মণ্ডলের মেয়ে পিয়ার। বিয়ের পর কনার মণ্ডল স্ত্রীকে নিয়ে কুলটিয়া বাজারের পাশে বাসা ভাড়া নিয়ে থাকতেন। পিয়া মণ্ডলের স্বজনের অভিযোগ, বছর খানেক আগে কনার মণ্ডল এলাকার এক নারীর সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন। বিষয়টি জানাজানি হলে দু’জনের মধ্যে প্রায়ই দাম্পত্য কলহ হতো। শনিবার সকালেও এ নিয়ে দু’জনের ঝগড়া হয়।

পরে কনার মণ্ডল বাড়ির বাইরে চলে গেলে সন্ধ্যায় মেয়ে কথাকে শ্বাসরোধে হত্যার পর ঘরের সিলিংয়ের হুকের সঙ্গে ঝুলে নিজেও গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেন। মনিরামপুর থানার ওসি রফিকুল ইসলাম বলেন, আত্মহত্যার প্ররোচনায় মৃত গৃহবধূর স্বামী কনার মণ্ডলকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

Check Also

৫ অক্টোবর ঢাবির হল খোলার সুপারিশ প্রভোস্ট কমিটির

করোনা পরিস্থিতির কারণে প্রায় দেড় বছর ধরে বন্ধ থাকা আবাসিক হলগুলো খুলে দেওয়ার সুপারিশ করেছে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *