তিন বছরে ধর্ষণ বেড়েছে ১২২ শতাংশ

ইয়াসমিনের মায়ের সঙ্গে মুঠোফোনে কথা হয় সন্ধ্যায়। ওই সময় সবে তিনি হাতের কাজ শেষ করে উঠেছেন। মধ্যে বিরতি দিয়ে তিনটি বাড়িতে সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত খণ্ডকালীন গৃহকর্মীর কাজ করেন। ফোনালাপের একপর্যায়ে স্বগোতক্তির মতো বললেন, ‘আচ্ছা, কেন নির্যাতন বন্ধ হয় না! আসলে শুধু সভা করলে কাজ হবে না! যারা অন্যায় করে, তাদের মনে ভয় ঢুকাতে হবে।’ এর মানে নারী নির্যাতন প্রতিরোধে সচেতনতা সৃষ্টির কথা বলছেন কি না, জানতে চাইলে হ্যাঁ–সূচক জবাব দেন ইয়াসমিনের মা ফরিদা বেগম (৫৪)।

দিনাজপুরের কিশোরী ইয়াসমিন এখনো দেশে নারী নির্যাতনের ভয়াবহতা এবং একই সঙ্গে সম্মিলিত প্রতিবাদের প্রতীক হয়ে রয়েছে।
পুলিশের সংঘবদ্ধ ধর্ষণ ও হত্যার শিকার ইয়াসমিনকে (১৩) স্মরণ করে আজ ২৪ আগস্ট দিনটিকে ‘নারী নির্যাতন প্রতিরোধ দিবস’ হিসেবে পালন করা হয়। ১৯৯৫ সালের এই দিনে ঢাকা থেকে দিনাজপুরে বাড়ির উদ্দেশে যাওয়া মেয়েটি ভোররাতে বাস থেকে নামে দিনাজপুর দশমাইল রোডে। বাড়ি পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে তাকে টহল পিকআপে তুলে নিয়ে ধর্ষণের পর হত্যা করেন তিন পুলিশ সদস্য।

বিজ্ঞাপন
আইন প্রয়োগের জায়গাগুলোতে জবাবদিহির শৃঙ্খলা তৈরি করা যায়নি। আইনের কার্যকারিতা দৃশ্যমান হলেই নারী নির্যাতনের সংখ্যা কমবে।
তাসলিমা ইয়াসমীন, সহযোগী অধ্যাপক, আইন বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
ইয়াসমিন হত্যার বিচার চেয়ে দিনাজপুরসহ সারা দেশ ফুঁসে ওঠে। ইয়াসমিনের পরিবার বিচারও পায়। ২০০৪ সালে তিন পুলিশ সদস্যের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হয়।

শিক্ষাবিদ, আইনজীবী এবং ভুক্তভোগীরা মনে করেন, নারী নির্যাতন বন্ধের যে প্রত্যাশা ও লক্ষ্য নিয়ে ইয়াসমিনকে স্মরণ করা হয়, সেই লক্ষ্য অর্জন থেকে দেশ এখনো অনেক দূরে। নারীর প্রতি শ্রদ্ধাশীল না থাকার সামাজিক দৃষ্টিভঙ্গি থেকে বহু মাত্রায় নারী নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। নির্যাতনের তুলনায় অপরাধীর সাজার হওয়ার উদাহরণও কম।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক তাসলিমা ইয়াসমীন প্রথম আলোকে বলেন, আইন একধরনের সুরক্ষা বোধ তৈরি করলেও নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে তা খুব একটা প্রভাব ফেলছে না। ধর্ষণের ক্ষেত্রে সাজার হার মাত্র ৩-৪ শতাংশ। আইন প্রয়োগের জায়গাগুলোতে জবাবদিহির শৃঙ্খলা তৈরি করা যায়নি। আইনের কার্যকারিতা দৃশ্যমান হলেই নারী নির্যাতনের
সংখ্যা কমবে।

Check Also

অনলাইন থেকে শুক্রাণু কিনে ‘ই-বেবি’র জন্ম দিলেন নারী

সন্তান পেতে চেয়েছিলেন। তবে শুধু এই কারণে বাধ্য হয়ে কোনো সম্পর্কে জড়াতে চাননি ৩৩ বছর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *