কে আজ জয়ী হলেন, বাবা নাকি মা

জাপান থেকে আসা দুই শিশুর মা এরিকো নাকানো ও বাবা ইমরান শরীফ দুজনেই তেজগাঁওয়ের ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে গিয়েছিলেন সকালে। এরপর শিশুসন্তানেরা সিআইডির তত্ত্বাবধানে, বাবা তাঁর নিজের গাড়িতে আর মা তাঁর মতো করে আদালতে পৌঁছান। দুই বোন হাত ধরে জড়সড় হয়ে ঢোকে এজলাসে।

কয়েক পর্বে দুই পক্ষের আইনজীবী, স্বামী-স্ত্রী ও সন্তানদের সঙ্গে কথা বলে বেলা ৩টার পর আদালত সিদ্ধান্ত দেন আগামী ১৫ দিন শিশুরা মা–বাবাকে নিয়ে গুলশানের একটি ফ্ল্যাটে থাকবে। এই ফ্ল্যাটের খরচ বহন করবেন জাপানি নাগরিক এরিকো নাকানো ও তাঁর স্বামী বাংলাদেশি আমেরিকান ইমরান শরীফ। পারিবারিক সহিংসতার মতো কোনো ঘটনা যেন না ঘটে, সে জন্য সমাজসেবা অধিদপ্তরের উপপরিচালক থাকবেন। নিরাপত্তা দেবে ঢাকা মহানগর পুলিশ ও পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। পরবর্তী আদেশের জন্য দিন ঠিক করা হয়েছে ১৬ সেপ্টেম্বর। তবে এর আগে কোনো পরিস্থিতির সৃষ্টি হলে আদালতকে জানাতে পারবে উভয় পক্ষই।

বিজ্ঞাপন
বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের বেঞ্চ বলেন, সব পক্ষের বক্তব্য শুনে শিশুদের সর্বোচ্চ কল্যাণ বিবেচনা করে তাঁরা এই আদেশ দেন।

উল্লেখ্য, জাপানি নাগরিক এরিকো নাকানো সন্তানদের জিম্মা চেয়ে হাইকোর্টে রিট করেছেন। অন্যদিকে তাঁর স্বামী ইমরান শরীফও বাংলাদেশের পারিবারিক আদালতে মামলা ঠুকেছেন। ইমরানের বিরুদ্ধে অভিযোগ তিনি স্ত্রীর অনুমতি না নিয়ে জাল পাসপোর্ট বানিয়ে সন্তানদের জাপান থেকে বাংলাদেশে নিয়ে এসেছেন। এই দম্পতির বিবাহবিচ্ছেদের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন। ইমরান শরীফ বলেছেন, মেয়েরা স্বেচ্ছায় তাঁর সঙ্গে চলে এসেছেন। অ্যাপার্টমেন্ট কেনা, ধর্মীয় ও সাংস্কৃতিক বিষয়ে মতদ্বৈততা থেকে এই দম্পতির বিরোধ চরমে পৌঁছায়।

Check Also

৫ অক্টোবর ঢাবির হল খোলার সুপারিশ প্রভোস্ট কমিটির

করোনা পরিস্থিতির কারণে প্রায় দেড় বছর ধরে বন্ধ থাকা আবাসিক হলগুলো খুলে দেওয়ার সুপারিশ করেছে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *