কাদের মির্জার নেতৃত্বে জাপা নেতাকে আটকে রেখে নির্যাতনের অভিযোগ

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা জাতীয় পাটির (জাপা) সাধারণ সম্পাদক মো. সাইফুল ইসলাম ওরফে স্বপনকে (৫৯) তুলে নিয়ে হাত-পা বেঁধে নির্যাতন করা হয়েছে। বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জার নেতৃত্বে তাঁর অনুসারীরা বুধবার বিকেল সাড়ে ৫টা থেকে রাত সাড়ে ১০টা পর্যন্ত পাঁচ ঘণ্টা পৌরসভা ভবনের তৃতীয় তলার একটি কক্ষে আটকে রেখে তাঁকে নির্যাতন করেছেন বলে অভিযোগ সাইফুল ইসলামের ছেলে মাহমুদুল ইসলামের।

পরিবারের দাবি, সাইফুল ইসলামকে নির্যাতনের পাশাপাশি তাঁর ব্যবহৃত মোটরসাইকেল ও মুঠোফোন ছিনিয়ে নেওয়া হয়েছে। গতকাল রাত ১১টার দিকে তাঁকে উপজেলা জাপার সভাপতি আবদুল লতিফের কাছে হস্তান্তর করা হয়। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় তাঁকে রাতেই ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখান থেকে আজ বৃহস্পতিবার সকালে তাঁকে ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী, আহত সাইফুল ইসলামকে ঢাকায় একটি বাসায় রাখা হয়েছে। আজ বিকেল পর্যন্ত তিনি অনেকটা অচেতন ছিলেন।

বিজ্ঞাপন
মাহমুদুল ইসলাম অভিযোগ করেন, তাঁর বাবা গত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় পার্টির দলীয় প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন। তাঁর বাবার সঙ্গে কাদের মির্জার কোনো পূর্ববিরোধ নেই। তবুও গতকাল বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে তাঁর বাবাকে বসুরহাটের কালামিয়া ম্যানশন নামের একটি বিপণিবিতানের সামনে থেকে কাদের মির্জার নেতৃত্বে তাঁর অনুসারীরা পৌরসভা কার্যালয়ে ধরে নিয়ে যান। এ সময় কাদের মির্জার সঙ্গে কয়েকজন পুলিশ সদস্য ছিলেন।

Check Also

অনলাইন থেকে শুক্রাণু কিনে ‘ই-বেবি’র জন্ম দিলেন নারী

সন্তান পেতে চেয়েছিলেন। তবে শুধু এই কারণে বাধ্য হয়ে কোনো সম্পর্কে জড়াতে চাননি ৩৩ বছর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *