নেইমারের রেকর্ডে আটে আট ব্রাজিলের

লিওনেল মেসির রেকর্ডের দিনে নয়া কীর্তি গড়েছেন নেইমারও। বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচে পেরুকে ২-০ গোলে হারিয়েছে ব্রাজিল। সেলেসাওদের টানা অষ্টম জয়ে মুখ্য ভূমিকায় ছিলেন নেইমার। এভারটন রিবেইরোকে দিয়ে এক গোল করানোর পাশাপাশি নিজে করেছেন এক গোল। এতে বিশ্বকাপ বাছাইয়ে ১২টি গোল হলো নেইমারের। যা ব্রাজিলীয় ফুটবলার হিসেবে সর্বোচ্চ।
আরেনা পের্নামবুকোয় বল দখলে এগিয়ে থেকে গোলবারের উদ্দেশ্যে ১০টি শট নেয় স্বাগতিক ব্রাজিল। যার লক্ষ্যে ছিল ৪টি।
বল দখলে পিছিয়ে থাকলেও শট নেয়ায় এগিয়ে ছিল পেরু। তবে ১২ শটের কেবল একটি লক্ষ্যে রাখতে পারে তারা।
ম্যাচের দশম মিনিটেই এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ পায় ব্রাজিল। বাঁ প্রান্ত থেকে নেয়া গারসনের শট অসাধারণ দক্ষতায় ঠেকান পেরুর গোলরক্ষক পেদ্রো গ্যালেজ। তবে চার মিনিটের ব্যবধানে এগিয়ে যায় ব্রাজিল। নেইমারের কাটব্যাক থেকে বুদ্ধিদীপ্ত শটে বল জালে পাঠান এভারটন রিবেইরো।

৩৩তম মিনিটে নেইমারের বাড়ানো বল ধরে ডান প্রান্তে লুকাস পাকুয়েতাকে দারুণ এক পাস দিয়েছিলেন এভারটন। তবে তার শট কর্নারের বিনিময়ে ব্লক করেন পেরুর এক ডিফেন্ডার। সুযোগ ছিল কর্নার থেকেও। দারুণ এক হেড দিয়েছিলেন পাকুয়েতা। তবে অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়।

৪০তম মিনিটে ব্যবধান ২-০ করেন নেইমার। ডি-বক্সের মাথা থেকে রিবেইরোর বুলেট হতির শট পেরুর একজনের পায়ে লেগে ফিরলে পেয়ে যান নেইমার। অরক্ষিত এই স্ট্রাইকার টোকা মেরে বল জালে পাঠান।
৫৯তম মিনিটে ব্যবধান কমাতে পারতো পেরু। ফ্রি কিক থেকে ফাঁকায় হেড নেয়ার সুযোগ পেয়েছিলেন এডিসন ফ্লোরেস। কিন্তু তার সোজা হেড সহজেই প্রতিহত করেন ব্রাজিল গোলরক্ষক ওয়েভারটন।

৭২তম মিনিটে জিয়ানলুকা দূরপাল্লার এক অসাধারণ শট নিয়েছিলেন। তবে লাফিয়ে উঠে কর্নারের বিনিময়ে ঠেকান ব্রাজিলিয়ান গোলরক্ষক ওয়েভারটন। ৮৫তম মিনিটে ব্যবধান বাড়ানোর সুযোগ হাতছাড়া করে ব্রাজিল। সতীর্থের থ্রু পাসে একেবারে ফাঁকায় বল পেয়ে গিয়েছিলেন বদলি খেলোয়াড় হাল্ক। তবে দুরূহ কোণ থেকে লক্ষ্যে রাখতে পারেননি তিনি।

Check Also

অনলাইন থেকে শুক্রাণু কিনে ‘ই-বেবি’র জন্ম দিলেন নারী

সন্তান পেতে চেয়েছিলেন। তবে শুধু এই কারণে বাধ্য হয়ে কোনো সম্পর্কে জড়াতে চাননি ৩৩ বছর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *