মাকে খু`ন করে দেহ পুঁতে সেই ঘরেই দু’বছর ধরে ছিলেন ছেলে

ভারতের পশ্চিমঙ্গের বর্ধমানে জন্মদাতা মাকে খু`ন করে দেহ ঘরের মেঝেতে পুঁ`তে রাখার অ`ভিযোগে ছেলেকে আ`টক করা হয়েছে। শুধু তাই নয়, মেঝেতে মায়ের দেহ পুঁ`তে রে`খে সেই ঘরের মধ্যেই দু’বছর ধরে বসবাস করছিল ছেলে। মাটির উপর থেকে ওই জায়গায় নিয়মিত ধূপধুনো দেখাত সে। আটককৃত যুবকের নাম শেখ নয়ন। পুলিশ জানায়, মৃ`ত মায়ের নাম সুকরানা বিবি (৫৮)। তাঁর ছোট ছেলে নয়ন বছর দুয়েক আগে সুকরানা বিবির মা`থায় মু`গুর মেরে এবং শ্বা`সরোধ করে তাঁকে খু`ন করে বলে অ`ভিযোগ।

তারপর প্রমাণ লো`পাট করতে দে`হ ঘরের নীচে পুঁ`তে দেয়। ইতিমধ্যে ঘ`টনার তদন্তে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নয়নকে আ`টক করা হয়েছে। এ খবর প্রকাশ করেছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম।পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বর্ধমান থানার হটুদেওয়ান পীরতলা ক্যানেলপাড় এলাকার বাসিন্দা নয়ন। তার বেড়াতে যাওয়ার নেশা ছিল। কিন্তু, সুকরানা বিবি ছেলের এই নেশা পছন্দ করতেন না। যদিও তার বিষয়ে হস্তক্ষেপ না করার বিষয়ে বারবার মা-কে নিষেধ করত নয়ন। কিন্তু মা শুনতেন না।

সেই রা`গেই বছর দুয়েক আগে নয়ন মা-কে খু`ন করে দে`হ লো`পাট করে দেয় বলে অ`ভিযোগ। ২০১৯ সালের ১০ জানুয়ারি থেকে নিখোঁজ হয়ে যান সুকরানা বিবি। দিন দশেক পরেও মায়ের খোঁজ না পেয়ে ওই বছরের ২২ ফেব্রুয়ারী সুকরানার বড় ছেলে শেখ কিসমত আলি ব`র্ধমান থানায় একটি নিখোঁজ ডায়ারি করেন। যদিও সুকরানা বিবির হদিশ দিতে ব্যর্থ হয় পু`লিশও।

অবশেষে নয়নের স্ত্রী স্বামীর কার্যকলাপের কথা স্বীকার করে র`হস্য ফাঁ`স করলেন।পু`লিশ সূত্রে খবর, স্বা`মীর সঙ্গে বিবাদের জেরে নয়নের স্ত্রী বাপেরবাড়ি এড়ুয়ারে থাকেন। তাঁদের বিবাদ মেটাতে নয়নের দাদা কিসমত আলি হস্তক্ষেপ করেন। সোমবার তিনি এড়ুয়ারে গিয়ে নয়নের স্ত্রীকে বাড়িতে নিয়ে আসার চেষ্টা করেন। তখনই নয়নের স্ত্রী জানান, সুকরানা বিবিকে নয়ন খু`ন করে দে`হ ঘরের মে`ঝেতে পুঁতে রেখেছে। যা শুনে স্তম্ভিত কিসমত আলি মঙ্গলবার সকালে ভাইকে এই বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। প্রতিবেশীদেরও ডাকা হয়।

Check Also

অনলাইন থেকে শুক্রাণু কিনে ‘ই-বেবি’র জন্ম দিলেন নারী

সন্তান পেতে চেয়েছিলেন। তবে শুধু এই কারণে বাধ্য হয়ে কোনো সম্পর্কে জড়াতে চাননি ৩৩ বছর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *