পালিয়ে গিয়েও শেষ রক্ষা হলো না অবশেষে ৯ লাখ টাকা দেনমোহরে তুলিকে বিয়ে করতে হল ছাত্রলীগ নেতার!

পালিয়েও রক্ষা পাননি প্রেমিক রিপন। অবশেষে প্রায় ২৪ ঘণ্টা পর রিপন ও তুলির দুই পরিবারের সমঝোতায় তাদের বিয়ের রেজিস্ট্রি ও চুক্তিপত্র সম্পন্ন হয়েছে।মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) রাতে দুই পরিবারের সদস্যদের উপস্থিতিতে ৯ লাখ টাকা দেনমোহরে এ বিয়ের রেজিস্ট্রি সম্পন্ন হয়। রংপুরের পীরগাছা উপজেলার ছাওলা ইউনিয়নের শিবদেব গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ছাওলা ইউনিয়নের জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক মো. শামসুজ্জোহা চঞ্চল।

প্রেমিক শিবদেব ভবানীপুর গ্রামের মো. আজিজুল হকের ছেলে মেহেদী হাসান রিপন। তিনি রংপুরের পীরগাছা উপজেলার ছাওলা ইউনিয়নের ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও পাওটানাহাট মালিক সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক।

জানা যায়, উপজেলার ছাওলা ইউনিয়নের শিবদেব গ্রামের ইট ভাটার মালিক মৃত মিঠু মিয়ার মেয়ে তুলি আক্তার ও শিবদেব ভবানীপুর গ্রামের মো. আজিজুল হকের ছেলে মেহেদী হাসান রিপন দীর্ঘদিন ধরে প্রেম করে আসছিলেন। প্রেমের টানে রিপন সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) রাতে তুলির সঙ্গে দেখা করতে যান।

একই দিন রাতে রিপন তুলির পরিবারের কাছে ধরা পড়লে রিপন তুলির পরিবারের কাছে কথা দিয়ে আসেন তুলিকে তিনি বিয়ে করবেন। কিন্তু রিপন কথা না রেখে পালিয়ে যান। পরে পালিয়ে গিয়েও শেষ রক্ষা হলো না তার।

কারণ এদিকে তুলি আক্তার বিয়ের দাবিতে রিপনের বাড়িতে অবস্থান শুরু করেন। অর্ধদিবস অবস্থান করার পর দুই পরিবারের সমঝোতায় বিয়ের রেজিস্ট্রি সম্পন্ন হয়েছে। ছাওলা ইউনিয়নের জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক মো. শামসুজ্জোহা চঞ্চল জানান, রিপনের মা অসুস্থ থাকায় আগামী সপ্তাহে তাদের বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষ হবে।

Check Also

ধর্ষণের পর পুড়িয়ে হত্যা: বড় ভাইয়ের ফাঁসি, ছোট ভাইয়ের যাবজ্জীবন

ফরিদপুরে এক নারীকে ধর্ষণের পর পুড়িয়ে হত্যার দায়ে শাহাবুদ্দিন খান নামে এক ব্যক্তিকে ফাঁসি এবং …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *