যে শাড়ি পরাও যায়, খাওয়াও যায়

আপনি হয়তো শাড়ি-চুরি পরে, সেজেগুজে ঘুরে বেড়াচ্ছেন; এরই মধ্যে হঠাৎ পেট চোঁ চোঁ করতে শুরু করল। হাতের কাছে কোনো খাবারও নেই। এখন কী করবেন? চাইলে এখন কেউ পরনের শাড়ির এক টুকরা খেয়েও ফেলতে পারেন! আবোলতাবোল বকছি না। খাওয়ার উপযোগী এক শাড়ি বানিয়ে পূজার আগে সব মনোযোগ নিজের দিকে টেনে নিয়েছেন ভারতের কেরালার এক ডিজাইনার। নাম তাঁর অ্যানা এলিজাবেথ জর্জ।

দরজায় কড়া নাড়ছে দুর্গাপূজা। চারদিকে পড়ে গেছে সাজ সাজ রব। নারীরা অফলাইন-অনলাইনের দোকান ঘুরে ঘুরে খুঁজছেন মনের মতো পোশাক। এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে অ্যানার এই বিচিত্র শাড়ি। বলা হচ্ছে, এর আগে নাকি খাওয়ার উপযোগী শাড়ি আর তৈরি হয়নি।

বিজ্ঞাপন
শাড়িটি বানিয়ে আগস্টের ২১ তারিখে অ্যানা ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করেছেন এক ভিডিও। সম্প্রতি সেটি হয়ে গেছে ভাইরাল। এই শাড়ি নিয়ে এখন প্রশ্ন আর তর্কবিতর্কের অন্ত নেই। তবে তর্কবিতর্ক যা-ই থাক, শাড়িপ্রিয় ভোজনরসিকদের হাসি যে চওড়া হয়েছে, তা না বললেও চলে। অ্যানা শাড়ির ভিডিওটি পোস্ট করার সময় গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট ট্যাগ করে লিখেছেন, ‘পুরো শাড়িটিই একদম খেয়ে ফেলা যাবে। এটাই বিশ্বের প্রথম “রিয়েল সাইজ” খাওয়ার উপযোগী শাড়ি। গবেষক হিসেবে আমার কাজই এ রকম নতুন কিছু সৃষ্টি করা। কখনো সীমার ভেতর থাকবেন না। আপনার কল্পনার কোনো সীমা নেই। আর যা কিছু কল্পনা করা সম্ভব, তার সবই করে দেখানো সম্ভব। যেমন এই শাড়ি।’

Check Also

শাড়ির সঙ্গে মেহন্দিতে আঁকা ব্লাউজ, ভিডিও ভাইরাল

সাধারণত শাড়ি সব জায়গায় উপযুক্ত পোশাক হিসেবে বিবেচিত হয়। শাড়ি-ব্লাউজ দুটো মিলিয়েই সম্পূর্ণ হয়। ব্লাউজের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *