ট্রেনের মূর্তিমান আতঙ্ক ‘পাথর’: কেউ হারিয়েছেন চোখ, কেউবা প্রাণ

কা, সোমবার ০৪ অক্টোবর ২০২১

×
Daily Bangladesh :: ডেইলি বাংলাদেশ
জাতীয়
করোনাভাইরাস
সারাদেশ
রাজধানী
আন্তর্জাতিক
রাজনীতি
বিনোদন
খেলা
ধর্ম
লাইফস্টাইল
সাত রঙ
অর্থনীতি
তথ্যপ্রযুক্তি
শিক্ষাঙ্গন
আইন-আদালত
শিল্প ও সাহিত্য
বইমেলা
স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা
বিজ্ঞান
ফিচার
ভ্রমণ
মুক্তকথা
মুখোমুখি
প্রবাস জীবন
জব কর্নার
মজার খবর
শোকাবহ আগস্ট
বিশেষ প্রতিবেদন
বিশেষ প্রতিবেদন ট্রেন
বিশেষ প্রতিবেদন স্বাস্থ্য
সোশ্যাল মিডিয়ায়
সাইবার স্পেস
মুজিববর্ষ
নামাজের সময়সূচি
আর্কাইভস
Daily Bangladesh :: ডেইলি বাংলাদেশ☰
জাতীয় করোনাভাইরাস সারাদেশ রাজধানী আন্তর্জাতিক রাজনীতি বিনোদন খেলা ধর্ম লাইফস্টাইল সাত রঙ অর্থনীতি তথ্যপ্রযুক্তি প্রথম প্রহর নামাজের সময়সূচি আর্কাইভস
হোম বিশেষ প্রতিবেদন
ট্রেনের মূর্তিমান আতঙ্ক ‘পাথর’: কেউ হারিয়েছেন চোখ, কেউবা প্রাণ
তানভীর রাসিব হাশেমী ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম
প্রকাশিত: ১৭:১২ ৩ অক্টোবর ২০২১ আপডেট: ১৮:৫০ ৩ অক্টোবর ২০২১

A- A A+
ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

জীবনের তাগিদে প্রায়ই আমাদের দেশের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে যেতে হয়। দূরপাল্লার যাত্রার ক্ষেত্রে সবাই বাস, ট্রেন, লঞ্চ কিংবা অন্যান্য যানবাহন ব্যবহার করে থাকেন। তবে তুলনামূলক আরামদায়ক ভ্রমণের জন্য অনেকেই ট্রেনকে বেশি বেছে নেন। তাছাড়া চলাচলের ক্ষেত্রে ট্রেনের ভাড়াও সাশ্রয়ী, নিরাপদও বটে। বর্তমান সরকারের প্রচেষ্টায় ট্রেন ভ্রমণ হয়েছে আরো আধুনিক ও আরামদায়ক। এতকিছুর পরেও ট্রেনে ভ্রমণরত অবস্থায় আতঙ্কে থাকছেন ট্রেনের যাত্রীরা। কিন্তু কী এই মূর্তিমান আতঙ্ক? চলন্ত ট্রেনে ঢিল ছুঁড়ছে একদল দুর্বৃত্ত। সেসব ঢিলে ভাঙছে জানালার কাঁচ। কখনও সেই ঢিল এসে লাগছে যাত্রীদের চোখে-মুখে। শিশুসহ যাত্রীদের প্রাণও গেছে ঢিলের আঘাতে।
১৮৫৩ সালের ১৬ এপ্রিল উপ-মহাদেশে যাত্রীবাহী ট্রেন চালু হওয়ার পর থেকে কোনো না কোনো স্থানে শিশু ও দুষ্কৃতিকারীদের দ্বারা চলন্ত ট্রেনে পাথর নিক্ষেপের ঘটনা ঘটেছে। বাংলাদেশেও এর ব্যতিক্রম নয়। স্বাধীনতা উত্তরকালে ট্রেনে পাথর নিক্ষেপের বেশ কিছু ঘটনা ঘটেছে এবং ক্রমেই তা ভয়াবহ সমস্যায় পরিণত হয়েছে। সাম্প্রতিক সময়ে চলন্ত ট্রেনে পাথর নিক্ষেপের হার বেড়েছে এবং এতে ট্রেনের গার্ড, কর্মচারীসহ যাত্রীরা আহত হয়েছেন। এতে কেউ চোখ হারিয়েছেন, এমনকি মৃত্যুবরণের ঘটনাও ঘটেছে। মূলত চলন্ত ট্রেনে পাথর নিক্ষেপের কারণে ঘটে যাওয়া এসব অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনাই আতঙ্ক সৃষ্টি করেছে যাত্রীদের মাঝে। ফলে দিনদিন ট্রেন ভ্রমণে আগ্রহ হারাচ্ছেন তারা।

বর্তমান সরকারের প্রচেষ্টায় ট্রেন ভ্রমণ হয়েছে আরো আধুনিক ও আরামদায়ক – ফাইল ছবি
বর্তমান সরকারের প্রচেষ্টায় ট্রেন ভ্রমণ হয়েছে আরো আধুনিক ও আরামদায়ক – ফাইল ছবি

বাংলাদেশের পথে প্রান্তরে ছড়িয়ে থাকা প্রায় তিন হাজার কিলোমিটার রেলপথ দিয়ে ট্রেন চলাচলের সময় এ ধরণের পাথর নিক্ষেপের ঘটনা প্রায়শই ঘটে। গত কয়েক বছরে এ ধরনের ঘটনায় নিহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন। ২০১৩ সালে চট্টগ্রামে প্রীতি দাশ নামের একজন প্রকৌশলী নিহত হবার পর বেশ শোরগোল হয় বিষয়টি নিয়ে। প্রীতি দাশ নিহত হওয়ার পর রেলওয়ের পক্ষ থেকে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। সেই কমিটির সদস্য রেলওয়ে কর্মকর্তা আব্দুর রাজ্জাক জানিয়েছেন, দুষ্কৃতকারীরা ইচ্ছা করে ট্রেনে ঢিল ছুঁড়ে ওই ঘটনা ঘটিয়েছে। ওই ঘটনায় দুই কিশোরকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ।

Check Also

আবরারের পরিবারকে ১২ বছর মাসিক ৭৫ হাজার টাকা দেবে বুয়েট!

বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) আগামী ১২ বছরের জন্য নিহত বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *