নৌকাডুবিতে দুই শিশুসন্তান ও বাবা–মাকে হারিয়ে পাগলপ্রায় ডেজিয়ারা

নৌকাডুবিতে দুই সন্তানসহ একসঙ্গে চার আপনজনকে হারিয়ে ডেজিয়ারা বেগম (২৬) দিশেহারা। তিনি অনেকটা উদ্‌ভ্রান্ত, প্রায়ই অস্বাভাবিক আচরণ করছেন। গত ২৯ সেপ্টেম্বর দুপুরে চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার পাকা ইউনিয়নের বোগলাউড়ি ঘাট থেকে দশরশিয়া ঘাট যাওয়ার পথে ওই ইঞ্জিনচালিত নৌকা ডুবে যায়। ওই ঘটনায় এ পর্যন্ত চারজনের লাশ উদ্ধার হলেও তিনজন নিখোঁজ। অভিযোগ রয়েছে, ওই দিন আবহাওয়া খারাপ থাকার পরও গাদাগাদি করে প্রায় অর্ধশত মানুষ তোলা হয়েছিল মালবোঝাই নৌকায়।

সেদিন নৌকায় ডেজিয়ারা বেগম, তাঁর তিন শিশুসন্তান, মা-বাবা ও এক ভাতিজাসহ পরিবারের মোট ৭ জন ছিলেন। নৌকাডুবির দিন তাঁর দুই বছরের শিশুকন্যা মাইশা ও মা নিলুফা বেগমের (৫০) লাশ পাওয়া যায়। এর দুই দিন পর তাঁর শিশুপুত্র আসমাউলের লাশ (৭) উদ্ধার হয়। এক সপ্তাহ পার হলেও ডেজিয়ারার বাবা খাইরুল ইসলাম (৫৫) এখনো নিখোঁজ। ধারণা করা হচ্ছে, বাবাও বেঁচে নেই। কোনোরকমে বেঁচে যান ডেজিয়ারা ও তাঁর বড় ছেলে সাজিদ (৮)।

বিজ্ঞাপন
ডেজিয়ারা চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার নারায়ণপুর ইউনিয়নের ছাব্বিশ রশিয়া গ্রামের মো. ফিটু ওরফে বাবুর (৩৩) স্ত্রী। তাঁর বাবার বাড়ি শিবগঞ্জ উপজেলার পাকা ইউনিয়নের বিশরশিয়া গ্রামে।

নৌকাডুবির দিন তাঁর দুই বছরের শিশুকন্যা মাইশা ও মা নিলুফা বেগমের (৫০) লাশ পাওয়া যায়। এর দুই দিন পর তাঁর শিশুপুত্র আসমাউলের লাশ (৭) উদ্ধার হয়। এক সপ্তাহ পার হলেও ডেজিয়ারার বাবা খাইরুল ইসলাম (৫৫) এখনো নিখোঁজ।

Check Also

অস্ট্রেলিয়ায় ওমিক্রনের কমিউনিটি ট্রান্সমিশন হচ্ছে

অস্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে বড় শহর সিডনিতে মহামারি করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রনের কমিউনিটি ট্রান্সমিশন ঘটছে। ইতিমধ্যে পাঁচ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *