ছোট্ট শিশুটি বুঝতে পারেনি তার মৃত্যু এতোটা করুণ হবে

মো. মামুন। গ্রামের বাড়ি হবিগঞ্জের মাধবপুরে। কাজ করেন রাজধানীর কাঁঠালবাগান এলাকার নির্মাণাধীন একটি ভবনের নিরাপত্তাকর্মী হিসেবে। চাকরিসূত্রে নির্মাণাধীন ওই ভবনেই দুই মেয়ে ও স্ত্রীকে নিয়ে থাকেন তিনি। কিন্তু এই থাকাটাই তার জন্য কাল হয়ে দাঁড়ালো।
রোববার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে নির্মাণাধীন ওই ভবনের সামনে খেলছিলো মো. মামুনের বড় মেয়ে জান্নাত আক্তার আরিফা (৬)। তার সামনেই নিজের কাজ করছিলেন মামুন। হঠাৎ করে ওই ভবনের ওপর থেকে ইট পড়ে আরিফার মাথায়। ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। ছোট্ট শিশুটি বুঝতে পারেনি তার মৃত্যু এতোটা করুণ হবে।

মো. মামুন ডেইলি বাংলাদেশকে বলেন, আরিফা খেলতে খেলতে ভবনের সামনে যায়। এসময় ৬ তলা থেকে কয়েকটি ইট ওর মাথায় পড়ে।

কলাবাগান থানার এসআই তাহমিনা রহমান বলেন, নিহত শিশুর মৃতদেহ উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়। সেখানে ময়নাতদন্ত শেষে আজ বিকেলে শিশুটির লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

Check Also

আবরারের পরিবারকে ১২ বছর মাসিক ৭৫ হাজার টাকা দেবে বুয়েট!

বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) আগামী ১২ বছরের জন্য নিহত বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *