হাজীগঞ্জে হামলা ও সংঘর্ষের ঘটনায় নিহত চারজনের লাশ হস্তান্তরের উদ্যোগ

কুমিল্লায় পবিত্র কোরআন অবমাননার ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে হামলা ও সংঘর্ষের ঘটনায় নিহত চারজনের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করবে পুলিশ। এ ঘটনায় পুলিশ সাতজনকে আটক করেছে।

হামলা ও সংঘর্ষের ঘটনায় চারজনের মারা যাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন হাজীগঞ্জ থানার ওসি মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ। নিহত ব্যক্তিরা হলেন হাজীগঞ্জ উপজেলার বড়কুল ইউনিয়নের রায়চোঁ গ্রামের আল আমিন(১৮), রান্ধুনীমুড়া এলাকার ফজলুল হকের ছেলে ইয়াছিন হোসেন (১৫), একই এলাকার আব্বাস উদ্দিনের ছেলে শামীম (১৯) ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার বাবলু (৩০)। তাঁদের লাশ চাঁদপুর সদর হাসপাতালের মর্গে ময়নাতদন্ত শেষে আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

বিজ্ঞাপন
রান্ধুনীমুড়া এলাকার আব্বাস উদ্দিনের ছেলে রিপন বলেন, ‘আমার ভাই শামীম ভ্যানে করে কলা বিক্রি করতে গিয়ে পুলিশের এলোপাতাড়ি গুলিতে আহত হওয়ার পর বুধবার রাত সাড়ে ১১টায় কুমিল্লা মেডিকেলে মারা যান।’

চাঁদপুরের পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ বলেন, ‘আমরা কাউকে উদ্দেশ করে গুলি করিনি। মন্দিরে ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও পুলিশের ওপর হামলার চালানো হলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ১৩৯ রাউন্ড গুলি ছোড়া হয়। এ ঘটনায় এএসপি সোহেল মাহমুদ, হাজীগঞ্জ থানার ওসি হারুনুর রশিদসহ ২৩ জন পুলিশ সদস্য আহত হন। এর মধ্যে পুলিশের আটজন সদস্য হাজীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

Check Also

ধর্ষণের পর পুড়িয়ে হত্যা: বড় ভাইয়ের ফাঁসি, ছোট ভাইয়ের যাবজ্জীবন

ফরিদপুরে এক নারীকে ধর্ষণের পর পুড়িয়ে হত্যার দায়ে শাহাবুদ্দিন খান নামে এক ব্যক্তিকে ফাঁসি এবং …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *