একজনকে ২৫ বার, মাস শেষ হলেই নেন নতুন ছাত্রের ‘যৌন-সেবা’

প্রথমে ছাত্রকে নিজ কক্ষে ডেকে নেন। এরপর করান শরীর ম্যাসাজ। মেটাতে হয় যৌন চাহিদাও। ফাঁকি দিলেই চলে নির্যাতন। মুখ খোলার সাহসও পেতো না ছাত্ররা। কেউ যেন মুখ না খোলে সেজন্য রাখতেন চোখে চোখে। এভাবেই প্রতি মাসে একজন করে ‘যৌন-সেবা’ নেন মুহতামিম।
মাদরাসা থেকে কৌশলে পালিয়ে মাকে সঙ্গে নিয়ে মুহতামিমের বিরুদ্ধে থানায় এমনই অভিযোগ করে এক ছাত্র। ঘটনাটি ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার চণ্ডীপাশা এলাকার কূলধূরুয়া দারুস সালাম ক্যাডেট মাদরাসার।

অভিযুক্ত শিক্ষকের নাম শাকিল মাহমুদ তামীম। তিনি কূলধূরুয়া দারুস সালাম ক্যাডেট মাদরাসার মুহতামিম। সোমবার সন্ধ্যায় শিক্ষকের বিচার চেয়ে থানায় অভিযোগ করে ভুক্তভোগী এক ছাত্র।

পুলিশ জানায়, ভুক্তভোগী ছাত্র নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার একটি গ্রামের বাসিন্দা। সে কূলধূরুয়া দারুস সালাম ক্যাডেট মাদরাসার ছাত্র। সেখানেই তাকে বলাৎকার করেন মাদরাসার মুহতামিম শাকিল মাহমুদ তামীম। এতে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে শিশুটি।

Check Also

আবরারের পরিবারকে ১২ বছর মাসিক ৭৫ হাজার টাকা দেবে বুয়েট!

বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) আগামী ১২ বছরের জন্য নিহত বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *