দুই শ্যালককে পানিতে ডুবিয়ে হত্যা, অতঃপর

শ্যালককে হত্যার অভিযোগ উঠেছে বাড়ির জামাইয়ের বিরুদ্ধে। ঘটনার পরে জামাইকে মারধর করে উত্তেজিত জনতা। তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে পুলিশ। মারধরের পরে কোমায় চলে গিয়েছেন অভিযুক্ত। ভারতের পশ্চিমবঙ্গের আসানসোল উত্তর থানার অন্তর্গত নুনির বাউড়ি পাড়ায় শনিবার রাতে এ ঘটনাটি ঘটেছে।

আনন্দবাজার পত্রিকা জানিয়েছে, বাড়ি থেকে কিছুটা দূরে দুই চাচাতো ভাই অশোক বাউড়ি ও বুধন বাউড়ির মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। পরিবারের অভিযোগ, বাড়ির জামাই হারু বাউড়ি প্রথমে দুই ভাইকে গলায় গামছা পেঁচিয়ে ও তার পর পানিতে ডুবিয়ে হত্যা করেন। খবর জানাজানি হতেই পালানোর চেষ্টা করেন হারু।

কিন্তু স্থানীয় বাসিন্দারা তাকে ধরে বেধড়ক মারধর করেন।খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তিনজনকেই উদ্ধার করে। অশোক ও বুধনের দেহ আসানসোল জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে তাদের মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। হারুকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় প্রথমে আসানসোল জেলা হাসপাতাল ও পরে দুর্গাপুরে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

হারুর জ্ঞান ফিরলে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, মদ্যপ অবস্থায় তিন জনের মধ্যে মারামারি হয়। তবে কী কারণে মারামারি তা খতিয়ে দেখছে উত্তর থানার পুলিশ ও আসানসোল দুর্গাপুর পুলিশ কমিশনারেটের গোয়েন্দা দফতর। অভিযুক্তের ফাঁসির দাবি করেছেন তার স্ত্রী ও শ্বশুরবাড়ির অন্যান্য সদস্য।

Check Also

অস্ট্রেলিয়ায় ওমিক্রনের কমিউনিটি ট্রান্সমিশন হচ্ছে

অস্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে বড় শহর সিডনিতে মহামারি করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রনের কমিউনিটি ট্রান্সমিশন ঘটছে। ইতিমধ্যে পাঁচ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *