ওমানের বিপক্ষেও ছন্নছাড়া ব্যাটিং

ওমানি ফিল্ডারদের ছোট্ট একটা ধন্যবাদ দিতেই পারেন মোহাম্মদ নাঈম। সৌম্য সরকারের জায়গায় একাদশে সুযোগ পেয়ে তিনি যে ইনিংসটি খেলে বাংলাদেশের মুখ বাঁচালেন, সেটি খেলারই কথা ছিল না তাঁর। দুই বার জীবন পেয়েছেন। সুযোগ কাজে লাগিয়ে পেয়েছেন একটা ফিফটি। কিন্তু ওই ফিফটি পাওয়া পর্যন্তই। দলের হালটা শেষ পর্যন্ত টেনে নিয়ে যেতে পারলেন না। দলের বাকি ব্যাটসম্যানরাও ব্যাটনটা ঠিকঠাক লক্ষ্যে নিয়ে যেতে পারলেন না। মোটামুটি বড় সংগ্রহের আশা জাগিয়েও বাংলাদেশের সংগ্রহটা ঠিক স্বস্তি দিতে পারল না কাউকে। ওমানের বিপক্ষে বাঁচা-মরার ম্যাচে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ১৫৩ রানে অলআউট হয়েছে বাংলাদেশ।

নাঈমের সঙ্গে সাকিবের ৮০ রানের জুটিই ছিল প্রাপ্তি
নাঈমের সঙ্গে সাকিবের ৮০ রানের জুটিই ছিল প্রাপ্তিছবি: বিসিবি
বিজ্ঞাপন
নাঈমের ইনিংসটি খুব দর্শনীয় বলা চলে না। কিন্তু তিনি ছিলেন কার্যকরী। তাঁর ইনিংসটির (৫০ বলে ৬৪) আরও প্রশংসা করা যেত, যদি তিনি শেষ পর্যন্ত থেকে দলকে বড় সংগ্রহে পৌঁছে দিতে পারতেন। তাঁকে যখন দলের বেশি প্রয়োজন, তখনই তিনি ফিরেছেন। একই কথা প্রযোজ্য সাকিব আল হাসানের বেলাতেও। নাঈমকে তিনি দারুণ সঙ্গ দিয়েছেন। ফিফটি না পেলেও নাঈমের সঙ্গে তাঁর ৫৩ বলে ৮০ রানের জুটিই আজ দলের ব্যাটিংয়ের মেরুদণ্ড। কিন্তু ২৯ বলে ৪২ রানের ইনিংসটি আরও বড় করতে পারতেন। আয়েশি ঢংয়ে দৌড়ে রান নিতে গিয়েই বড় ইনিংসের আশা জলাঞ্জলি দিতে হয়েছে তাঁকে। নাঈম আন সাকিব যদি আরও কিছুক্ষণ ইনিংসটাকে টেনে নিয়ে যেতে পারতেন তাহলে সংগ্রহটা আরও বড় হতে পারত, এটা না বললেও চলছে।

লিটন দাস (৭ বলে ৬) আজও ব্যর্থ। নিজের জড়তা কিছুতেই কাটিয়ে উঠতে পারছেন না। ওমানি ফিল্ডার যতীন্দর সিং ডিপ স্কয়ার লেগে তাঁর ক্যাচ ফেলার পরেও। জীবন পাওয়ার পরের বলেই বিলাল খানের ইয়ার্কারে এলবিডব্লু। আম্পায়ার অবশ্য প্রথমে আউট দেননি। পরে রিভিউ নিয়ে সফল লিটন ও বাংলাদেশ। শুরুতেই অবশ্য (ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে) বিলালের বলে অফ স্টাম্পের বাইরে প্রায় ‘ধরা’ খেয়ে গিয়েছিলেন। আম্পায়ার আবেদনে তখন সাড়া দিয়েছিলেন। কিন্তু লিটন ওই মুহূর্তে ছিলেন বেশ আত্মবিশ্বাসী। রিভিউ নিয়ে সে যাত্রা বেঁচে গিয়েছিলেন তিনি।

Check Also

অস্ট্রেলিয়ায় ওমিক্রনের কমিউনিটি ট্রান্সমিশন হচ্ছে

অস্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে বড় শহর সিডনিতে মহামারি করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রনের কমিউনিটি ট্রান্সমিশন ঘটছে। ইতিমধ্যে পাঁচ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *