ফেসবুক লাইভে স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যায় স্বামীর ফাঁসি

ফেনীতে ফেসবুক লাইভে এসে গৃহবধূ তাহমিনা আক্তারকে কুপিয়ে হত্যার মামলায় তার স্বামী ওবায়দুল হক টুটুলকে (৩২) ফাঁসির রায় দিয়েছেন আদালত। এ সময় তাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার (২১ আগস্ট) দুপুরে জেলা ও দায়রা জজ ড. বেগম জেবুন্নেছার আদালত এ রায় দেন। রায় ঘোষণার সময় আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ফেনী জজ কোর্টের পিপি হাফেজ আহম্মদ বলেন, সব তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে খুনের অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় আদালত আসামিকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে।

রায়ের বিষয়ে বাদী পক্ষের আইনজীবী শাহজাহান সাজু বলেন, অল্প সময়ে মামলাটির বিচার কাজ শেষ হয়েছে। এ রায়ের মধ্য দিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন হয়েছে। আমরা সুবিচার পেয়েছি। আসামিপক্ষের আইনজীবী আবদুস সাত্তার বলেন, আমরা সুবিচার পাইনি। সুবিচারের জন্য উচ্চ আদালতে আমরা আপিল করবো। হত্যাকাণ্ডের শিকার তাহমিনার বাবা সাহাব উদ্দিন বলেন, ন্যায় বিচার পেয়েছি, সরকারের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ।

এর আগে ২০২০ সালের ১৫ এপ্রিল ফেনীতে ফেসবুক লাইভে এসে স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যার পর স্বামী ওবায়দুল হক টুটুল (৩২) ৯৯৯-এ নিজেই ফোন করে ঘটনা জানান এবং পুলিশি সহায়তা চান। তারপর পুলিশ গিয়ে তাকে গ্রেফতার করে। টুটুল ভূঁইয়া নামের একটি ফেসবুক আইডি থেকে লাইভে এসে এমন নৃশংস খু’নের অবতারণা করেন ওই যুবক। ওবায়দুল হক টুটুল ঢাকার একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করে। তাদের ঘরে দেড় বছরের একটি মেয়ে সন্তান রয়েছে। সে একই এলাকার গোলাম মাওলা ভুঞার ছেলে।

হত্যার আগে ফেসবুক লাইভে টুটুল ভুঁইয়া বলেন, ‘প্রিয় দেশবাসী, আমাকে ক্ষমা করে দেবেন, আজকে আমার কারণে আমার পরিবার ধ্বংস। যার কারণে ধ্বংস আজকে তারে আমি এ মুহূর্তে ধ্বংস করে দিলাম। আমি চেষ্টা করছি, অনেক চেষ্টা করছি, পারি নাই। আল্লাহর ওয়াস্তে সবাই আমাকে মাফ করে দেবেন। আমার এতিম মেয়েটার খেয়াল রাখবেন। আমার ভাইবোনগুলোর খেয়াল রাখিয়েন। আমার পরিবার ভাইবোনগুলার কোনো দোষ নাই। কেউ এটাতে সম্পৃক্ত না

Check Also

শাড়ির সঙ্গে মেহন্দিতে আঁকা ব্লাউজ, ভিডিও ভাইরাল

সাধারণত শাড়ি সব জায়গায় উপযুক্ত পোশাক হিসেবে বিবেচিত হয়। শাড়ি-ব্লাউজ দুটো মিলিয়েই সম্পূর্ণ হয়। ব্লাউজের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *