আমি কেন সিঁড়ি বেয়ে নিচে নামব’, ইলিয়াস কাঞ্চনের আক্ষেপ

palo-logo
By using this site, you agree to our Privacy Policy.
OK
ঢালিউড
‘আমি কেন সিঁড়ি বেয়ে নিচে নামব’, ইলিয়াস কাঞ্চনের আক্ষেপ
বিনোদন প্রতিবেদকঢাকা
প্রকাশ: ১০ নভেম্বর ২০২১, ১৭: ৩৩
অ+
অ-
আক্ষেপ থেকেই সিনেমায় অভিনয় করা কমিয়ে দিয়েছিলেন ইলিয়াস কাঞ্চন
আক্ষেপ থেকেই সিনেমায় অভিনয় করা কমিয়ে দিয়েছিলেন ইলিয়াস কাঞ্চনছবি: সংগৃহীত
আক্ষেপ থেকেই সিনেমায় অভিনয় করা কমিয়ে দিয়েছিলেন ইলিয়াস কাঞ্চন। সেই আক্ষেপ এখন কষ্টে পরিণত হয়েছে। যাঁর নামের পাশে ‘বেদের মেয়ে জোস্‌না’র মতো ব্যবসাসফল আর ‘বসুন্ধরা’, ‘ডুমুরের ফুল’ বা ‘সুন্দরী’র মতো শিল্পসফল সিনেমার নাম, সেই অভিনেতার কিসের আফসোস, কিসের কষ্ট!

বিজ্ঞাপন
ইলিয়াস কাঞ্চন
ইলিয়াস কাঞ্চনছবি: সংগৃহীত
তরুণ বয়স থেকে একটু একটু করে অভিনয়টা রপ্ত করেছেন তিনি। দীর্ঘ ক্যারিয়ারে যখন বুঝলেন, অভিনয়ে পটু হয়ে উঠেছেন, তখন দেখা দিল অন্য সংকট। কী সংকট? ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, ‘যখন বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করার মতো জায়গায় এলাম, তখন থেকেই আমার উপযোগী চরিত্র পাচ্ছিলাম না। আমার কষ্ট লাগত। অমিতাভ বচ্চনকে দিয়ে এই বয়সে তাঁর মতো চরিত্র তৈরি করে সিনেমা হচ্ছে, একইভাবে রজনীকান্তের কথা বলা যায়। শিল্পীর অবয়বের ওপর চিন্তা করে চরিত্র তৈরি করতে হয়। কাজের এই ধরন আমাদের দেশে নেই। যে কারণে আমাদের এখানে সময়ের আগেই শিল্পীর মৃত্যু ঘটে।’

বিজ্ঞাপন
ইলিয়াস কাঞ্চন
ইলিয়াস কাঞ্চনছবি : কবির হোসেন
কিছুটা থেমে ইলিয়াস কাঞ্চন আরও বলেন, ‘শিল্পী দিন দিন পরিণত জায়গায় আসে। এমন হয়, শেষ জীবনে এসেও সেরা অভিনয়টা করার সুযোগ পান অনেকে। কিন্তু আমাদের এখানে এমন একটা অবস্থা যে গুণ নিয়েও অভিনেতাকে সিনেমায় বাবা বা ভাইয়ের চরিত্রে দুই–চারটি দৃশ্য নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয়, যার সঙ্গে মূল গল্পের যোগসূত্র থাকে না। নাটকেও প্রায় একই অবস্থা। ক্যারিয়ারে কিছু সিনেমা করে দর্শকদের কাছে ইলিয়াস কাঞ্চন হয়েছি। সেই জায়গা থেকে এখন কাজ করতে গেলে মনে হয়, সিঁড়ি বেয়ে নিচে নামছি। আমি কেন সিঁড়ি বেয়ে নামব? এভাবে না করার কারণে একসময় গল্পই আসা বন্ধ হয়ে যায়।’

Check Also

আবরারের পরিবারকে ১২ বছর মাসিক ৭৫ হাজার টাকা দেবে বুয়েট!

বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) আগামী ১২ বছরের জন্য নিহত বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *