যৌন নিপীড়নের অভিযোগ তোলার পর থেকে লাপাত্তা চীনা টেনিস তারকা

সম্প্রতি চীনের সাবেক উপপ্রধানমন্ত্রী ঝ্যাং গাওলির বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ তোলার পর থেকে দেশটির টেনিস তারকা পেং সুয়াই লাপাত্তা। চীনের রাষ্ট্রায়ত্ত সম্প্রচারমাধ্যমে পেংয়ের লেখা দাবি করে একটি ই-মেইল প্রকাশিত হয়েছে। ই-মেইলটি নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন উইমেনস টেনিস অ্যাসোসিয়েশনের (ডব্লিউটিএ) প্রধান স্টিভ সিমন। তিনি বলেছেন, ই-মেইলটি পেং সুয়াই বা তাঁর পক্ষে কেউ লিখেছিলেন এটা ‘বিশ্বাস করতে কষ্ট হচ্ছে’ তাঁর। খবর বিবিসির।

ডব্লিউটিএ-এর প্রধান স্টিভ সিমনকে পাঠানো ই-মেইলটি গতকাল বুধবার অনলাইনে প্রকাশ করেছে চীনা সম্প্রচারমাধ্যম সিজিটিএন। সেখানে দাবি করা হচ্ছে, ই-মেইলটি পেং সুয়াইয়ের লেখা। তিনি নিখোঁজ কিংবা অনিরাপদ নন। পেং সুয়াই লিখেছেন, ‘আমি বাড়িতে বিশ্রাম নিচ্ছি এবং সবকিছু ঠিক আছে।’

বিজ্ঞাপন
তবে ই-মেইলের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশটি হলো, সেখানে লেখা আছে, পেং সুয়াই ঝ্যাং গাওলির বিরুদ্ধে যে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ তুলেছেন, সেটা মিথ্যা।

ই-মেইলটি অনলাইনে প্রকাশিত হওয়ার পরপরই সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোতে অনেকে এর প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছেন। অনেকেই ই-মেইলের সত্যতা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন। এর মধ্যে কেউ কেউ উল্লেখ করেছেন, সিজিটিএন কর্তৃক প্রকাশিত ই-মেইলের স্ক্রিনশটে একটি টাইপিং কার্সার দৃশ্যমান বলে মনে হচ্ছে।

টেনিস ক্যারিয়ারে দুবার উইমেন ডাবলসে গ্র্যান্ড স্লাম জেতা পেং সুয়াই গত নভেম্বরে এই অভিযোগ তোলেন। চীনের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম উইবোতে এক পোস্টে তিনি অভিযোগ করেন, চীনের সাবেক উপপ্রধানমন্ত্রী ও কমিউনিস্ট পার্টির নেতা ঝ্যাং গাওলি তাঁর সঙ্গে যৌন সম্পর্ক করতে তাঁকে বাধ্য করেন। পেংয়ের এই উইবো পোস্টের পর চীনে ইন্টারনেটে তোলপাড় শুরু হয়। দেশটির শীর্ষস্থানীয় একজন রাজনীতিকের বিরুদ্ধে এবারই প্রথম প্রকাশ্যে এ রকম অভিযোগ উঠেছে।

Check Also

অস্ট্রেলিয়ায় ওমিক্রনের কমিউনিটি ট্রান্সমিশন হচ্ছে

অস্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে বড় শহর সিডনিতে মহামারি করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রনের কমিউনিটি ট্রান্সমিশন ঘটছে। ইতিমধ্যে পাঁচ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *