প্রকাশ্যে ছাত্রীকে জোর করে জড়িয়ে ধরে চুমুর ভিডিও ভাইরাল!

একই সহপাঠী নাঈম বরগুনার পাথরঘাটায় একটি স্কুলের অষ্টম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক ছাত্রের মোবাইল ফোনে জোরপূর্বক আপত্তিকর ভিডিও রেকর্ড করে ভিডিও শেয়ারিং অ্যাপ টিকেট ছড়িয়ে দিয়েছে। নিহতের পরিবার তার সহপাঠীর নামে মামলা করেছে।

বরগুনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে আত্মসমর্পণ করেছে অভিযুক্ত স্কুলছাত্রী। মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) দুপুরে বরগুনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক হাফিজুর রহমান শিশুদের কারাগারে বরগুনা থেকে যশোর সংশোধনাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২৫ সেপ্টেম্বর স্কুল ছুটির পর কিশোর ইতিমধ্যে তার ব্যাগ নিয়ে চলে গিয়েছিল। পরে যখন সে তা আনতে যায়, তখন সে মেয়েটিকে জড়িয়ে ধরে চুমু খায়। এ সময় তার আরেক বন্ধু গোপনে মোবাইল ফোনে ওই দৃশ্য ভিডিও ধারণ করে।

পরে তারা ভিডিওটি ফেসবুকে ও টিকিটে প্রকাশ করে। ভিডিওটি ভাইরাল হয়ে যায় টিকিটে। আরও জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরেই মেধাবী মেয়েটিকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন তিনি। কিশোর রাজি না হওয়ায় জোর করে এ ধরনের ঘটনা ঘটে। এছাড়াও বিভিন্ন সময় রাস্তা অবরোধ করে তাকে উত্ত্যক্ত করতো।

Check Also

আবরারের পরিবারকে ১২ বছর মাসিক ৭৫ হাজার টাকা দেবে বুয়েট!

বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) আগামী ১২ বছরের জন্য নিহত বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *